01942-119900 support@acceptcs.com
ফ্ল্যাট কেনার পর করণীয়

ফ্ল্যাট কেনার পর করণীয়

Last Updated on

ফ্ল্যাটটি যদি আপনি কোন ডেভলপার কোম্পানী কাছ থেকে কিনে থাকেন, তবে ফাইনাল পেমেন্ট দেওয়ার সাথে সাথে ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট এবং হ্যান্ডওভার সার্টিফিকেট উক্ত কম্পানি কাছ থেকে বুঝে নিয়ে ফ্ল্যাটের সবগুলো চাবি

নিজ দায়িত্বে নিবেন এবং সম্ভব হলে নিজে বসবাস করতে শুরু করবেন অথবা ভাড়া দেওয়ার চেষ্টা করবেন। ফ্ল্যাটটি যত দ্রুত সম্ভব রেজিস্ট্রেশন করে নেওয়া ভালো। রেজিস্ট্রেশন করার পর রেজিস্ট্রেশন এর মানি রিসিট ও সার্টিফাই কপি সংগ্রহ করতে হবে । সার্টিফাই কপি হাতে পাওয়ার পর এক বছরের মধ্যে মূল কপি সংগ্রহ করতে হয় তবে সার্টিফাই কপি দিয়ে আপনার সব ধরনের কাজ পরিচালনা করতে পারবেন ।আপনি যে প্রতিষ্ঠান বা কনসালটেন্ট এর মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করেছেন তার মাধ্যমে রেজিস্ট্রেশন এর মূল কপিটি সংগ্রহ করবেন। অনেকে এটাকে ভুল করে বা গুরুত্ব না দিয়ে সংরক্ষণ করেন না ।

ফ্ল্যাট রেজিস্ট্রেশনের পর গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে ফ্ল্যাট মিউটেশন বা নামজারি করা ।

তিনটি প্রতিষ্ঠান থেকে ফ্ল্যাট মিউটেশন করতে হয়


১।রাজউক মিউটেশন
২।ল্যান্ড অফিস মিউটেশন
৩।সিটি কর্পোরেশন মিউটেশন

রাজউক মিউটেশনে যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন
১।. জমির দলিল ও লীজ ডিড
২।. ফ্ল্যাট রেজিস্ট্রেশনের সার্টিফাই কপি
৩।.ন্যাশনাল আইডি অথবা স্মার্ট কার্ডের ফটোকপি
৪ ।পাসপোর্ট সাইজের ২ কপি ছবি

ভূমি অফিস মিউটেশনে যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন
১।জমির দলিল ও লীজ ডিডের ফটোকপি
২।ফ্ল্যাটে রেজিস্ট্রেশন এর সার্টিফাই কপি
৩।পাওয়ার অফ এটনীর ফটোকপি
৪।ন্যাশনাল আইডি অথবা স্মার্ট কার্ডের ফটোকপি
৫।পাসপোট সাইজের ২ কপি ছবি
৬। সর্বশেষ খাজনা প্রদানের রশিদের ফটোকপি

সিটি কর্পোরেশন মিউটেশনে যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন
১।রাজউক মিউটেশনের কপি
২।ল্যান্ড অফিস মিউটেশনের কপি
৩।ন্যাশনাল আইডি অথবা স্মার্ট কার্ডের ফটোকপি
৪। পাসপোর্ট সাইজ ২ কপি ছবি
৫।পার্সোনাল ই-টিনের ফটোকপি

ফ্ল্যাট মিউটেশনের জন্য কি পরিমাণ টাকা লাগবে সেটা ডিপেন্ড করে আপনি কোন এলাকায় কত স্কয়ার ফিটের ফ্ল্যাট কিনেছেন তার উপর ভিত্তি করে।

সিটি কর্পোরেশন থেকে আপনার ফ্ল্যাটের টেক্স নির্ধারিত হবে ।আপনার ফ্ল্যাটের কেমন টেক্স নির্ধারিত হবে সেটাও ডিপেন্ড করবে আপনি কোন এলাকায় কত স্কয়ার ফিট ফ্ল্যাট কিনেছেন সেটার উপর ভিত্তি করে। তবে সরকারের নিয়ম অনুযায়ী আপনি অনেকটা টেক্স মওকুফ করাতে পারবেন। যদি আপনি নিজে বসবাস করেন অথবা আপনার উত্তরাধিকারী আপনার ক্রয় কৃত ফ্ল্যাটে বসবাস করে তবে নির্ধারিত টেক্স এর মধ্য থেকে ৪০% কমানোর জন্য আবেদন করতে পারবেন ।

টেক্স অ্যাসেসমেন্ট এর জন্য যে সকল ডকুমেন্ট প্রয়োজন


১। ফ্ল্যাট হ্যান্ড ওভার লেটার
২। মিউটেশন এর ফটোকপি (রাজউক ও ল্যান্ড অফিস )
৩। ন্যাশনাল আইডি অথবা স্মার্ট কার্ডের ফটোকপি
৪.। পাসপোর্ট সাইজ ২ কপি ছবি আপনার কোন প্রকার ব্যাংক লোন থাকলে অথবা আপনি যদি মনে করে ট্যাক্স বেশি ধরা হয়েছে সেই ক্ষেত্রে আপনি পুনরায় ২৫ %ট্যাক্স মওকুফ করার জন্য কমিশন অফিসে আবেদন করতে পারবেন। এই ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই ৪০% মওকুফ পাওয়া টেক্সট ও ৩৫% ট্যাক্স পরিশোধ করে এক মাসের মধ্যে এই ২৫% ট্যাক্স মওকুফের জন্য আবেদন করতে হবে। Copy right no : Applicant 

Total Page Visits: 622
Share On
Next Post »

ফ্ল্যাট কেনার পূর্বে যেসব বিষয় জানতে হবে

« Previous Post

প্রতি বর্গফুটে একটি ফ্ল্যাটের নির্মাণ খরচ কত ?